২৪ জুন ২০২৪, সোমবার, ০৫:০২:০২ পূর্বাহ্ন
ইউক্রেন থেকে শস্য কেনা নিষিদ্ধ করল ইউরোপের ৩ দেশ
  • আপডেট করা হয়েছে : ১৬-০৯-২০২৩
ইউক্রেন থেকে শস্য কেনা নিষিদ্ধ করল ইউরোপের ৩ দেশ

ইউক্রেন থেকে শস্য আমদানি নিষিদ্ধ করেছে ইউরোপের তিন দেশ। স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার দেশ তিনটি এই ঘোষণা দিয়েছে। ইউক্রেনের প্রতিবেশী ওই দেশ তিনটি হলো পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি। ইউরোপীয় কমিশন ইউক্রেনের প্রতিবেশী পাঁচ দেশে শস্য রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার দিনে দেশ তিনটি এ ঘোষণা দেয়।


ইউক্রেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ শস্য রপ্তানিকারক দেশ। কিন্তু রাশিয়া ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি দেশটি আক্রমণের পর থেকে এর শস্য রপ্তানি কমে গেছে। আরও একটি কারণ হলো, রাশিয়া কৃষ্ণসাগর ইউক্রেনে শস্যবাহী জাহাজের জন্য করিডর বন্ধ করে দেওয়ায় দেশটি খুব বেশি বাণিজ্যিক সুবিধা নিতে পারছে না। ফলে বিশ্বজুড়েই খাদ্যশস্যের দাম বেড়েছে। 


কিন্তু প্রতিবেশী দেশগুলোতে ইউক্রেনে শস্যের অবাধ আমদানির কারণে স্থানীয় কৃষকদের উৎপাদিত শস্যের দাম কমে গেছে, যা স্থানীয় কৃষকদের আয় কমিয়ে দিয়েছে এবং এ কারণেই দেশ তিনটি ইউক্রেন থেকে শস্য ক্রয় নিষিদ্ধ করেছে। এর আগে গত মে মাসে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ইউক্রেনের শস্য রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। তবে শর্ত সাপেক্ষে ইউক্রেন থেকে কিছু শস্য রপ্তানি বৈধ ছিল। সেই শর্ত হলো—যে দেশ ইউক্রেনের শস্য কিনবে, তারা বিশ্বের অন্য কোথাও সেই শস্য বিক্রি করবে।


কিন্তু গতকাল শুক্রবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। তারই পরিপ্রেক্ষিতে পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি নিজ নিজ উদ্যোগে ইউক্রেনের শস্য আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। 


ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাণিজ্য কমিশনার ভালদিস ডমব্রোভস্কিস শুক্রবার বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর উচিত ইউক্রেনীয় শস্য আমদানির বিরুদ্ধে একতরফা পদক্ষেপ গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকা উচিত।’ কিন্তু পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি সেই আহ্বান না মেনে ইউক্রেনীয় শস্য আমদানিতে তাদের নিজস্ব বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। তবে দেশগুলো তাদের ভূখণ্ড ব্যবহার করে ইউক্রেনীয় পণ্য পরিবহন করতে দেবে।


শেয়ার করুন