essay writer
রাজশাহী | বৃহস্পতিবার | জানুয়ারী 18, 2018 | 5 মাঘ, 1425

কালিহাতীতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে ইউপি সদস্যদের সংবাদ সম্মেলন

কালিহাতীতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে ইউপি সদস্যদের সংবাদ সম্মেলন

মেহেদী হাসান :টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নাগবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাকছুদুর রহমান মিল্টন সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে নানা প্রকার দূর্নীতির অভিযোগে শনিবার বিকালে ইউনিয়ন পরিষদের ৬ জন সদস্য টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা যমুনা হাইওয়ে রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাগবাড়ী ইউপি সদস্য ফজলুল হক বলেন, উপজেলার ১২ নং নাগবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদে মাকছুদুর রহমান মিল্টন সিদ্দিকী ২০১৬ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই ভিজিডি কার্ডের চালে স্বজনপ্রীতি, দারিদ্রের জন্য কর্মসংস্থান প্রকল্পের টাকা, আত্মসাৎ হাট বাজারের টাকা আত্মসাৎ, বয়স্কভাতা কার্ডে ৩/৪ হাজার টাকার বিনিময়ে বিতরণ, আদায়কৃত হোল্ডিং ট্যাক্সের টাকা, সদস্যদের ভাতা, জন্মমৃত্যু নিবন্ধন সনদ, ওয়ারিশান সনদ এবং ট্রেড লাইসেন্স এর টাকাসহ প্রায় ৫০ লাখ টাকার দূর্নীতি করেন। এমনকি চলতি বছরের ১৪ মার্চ তার এলাকার এক প্রবাসীর স্ত্রীকে উপজেলার এলেঙ্গা রিসোর্টে ধর্ষনের অভিযোগে কালিহাতী থানায় একটি মামলা (নং- ১৫/২০১৭ ইং, জি,আর নং- ৬১/২০১৭ ইং) দায়ের করা হয়। ওই মামলার প্রেক্ষিতে টাঙ্গাইলের গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ওই চেয়ারম্যানকে গত বছরের ১২ আগস্ট গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। এক পর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পান ১নং প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম। দীর্ঘ ৭০ দিন পর মিল্টন চেয়ারম্যান জেল হাজত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব না পাওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদে জোরপূর্বক ভাবে সকল প্রকার অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য আয়নাল হক (৭নং ওয়ার্ড), মো: হালিম (১নং ওয়ার্ড), মো: ফজল (২নং ওয়ার্ড), মো: বাছেদ মিয়া (৫নং ওয়ার্ড), মোছা: রওশনারা (সংরক্ষিত ১,২,৩নং ওয়ার্ড ),মোছা: রেহেনা (সংরক্ষিত ৪,৫,৬নং ওয়ার্ড)। তারা চেয়ারম্যানের সকল দূর্ণীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। তারা আরও বলেন, তিনি দায়িত্বে না থেকেও অনিয়মতান্ত্রিকভাবে চেয়ারম্যানের সকল দাপ্তরিক কাজ পরিচালনা করছেন। তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের কারণে তিনি ইউপি সদস্যদের বিভিন্ন হুমকি ধামকি এবং দুই সদস্যকে পুলিশ দিয়ে গ্রেপ্তার করানো হয় বলে তারা জানান। সম্মেলনে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য রেহেনা বেগম জানান, তাকে দিয়ে ৩টি প্রকল্প সভাপতি বানিয়ে কৌশলে স্বাক্ষর নিয়ে বরাদ্দকৃত সকল টাকা চেয়ারম্যান আত্মসাৎ করেছেন।
মেহেদী হাসান টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
০১৭১৬৪৭৯৫৩৬

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>