essay writer
রাজশাহী | শনিবার | ফেব্রুয়ারী 24, 2018 | 12 ফাল্গুন, 1425

চিরিরবন্দরে হঠাৎ করে তীব্র শীতের হানা

চিরিরবন্দরে হঠাৎ করে তীব্র শীতের হানা

মো: আব্দুস সালাম- চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) থেকে-দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে হঠাৎ করে তীব্র শীত হানা দিয়েছে। বইছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ কনকনে শীতের কারনে কাহিল হয়ে পড়েছে চিরিরবন্দর উপজেলার শত শত দরিদ্র লোক। শীত মোকাবিলায় স্থানীয় প্রশাসনের প্রস্তুতি খুব সামান্য। পর্যাপ্ত শীত বস্ত্র না থাকায় খেটে খাওয়া মানুষের দূর্ভোগ বাড়ছে। প্রচন্ড শীতের কারণে বাড়ছে শীত জনিত রোগ। অনেক স্থানে মানুষ সূর্যের মুখও দেখছে না। কোথাও বা দেখা গেলে তা ছিল খুব অল্প সময়ের জন্য। শীতার্ত মানুষের পাশে এখন পর্যন্ত বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান গুলো সেভাবে এগিয়ে এসেনি। সচেতন মহলের দাবি, বে-সরকারি সংস্থা গুলো এগিয়ে না এলে চরম দুভোর্গে পড়বে শীতার্ত মানুষ। শীতের জন্য নি¤œ আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ ঠিকমতো নিজেদের শ্রম বিক্রি করতে না পেরে বেকায়দায় পড়েছে। ঘন কুয়াশা ও কনকনে শীতের কারনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোতে ও ক্রেতা- বিক্রেতার সমাগম কমে গেছে।

রাস্তা ঘাটে যানবাহন চলাচল করছে নিয়ন্ত্রিত গতিতে। দুরপাল্লার যানবাহন গুলো দিনের বেলা হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে দুর্ঘটনার আশঙ্খা নিয়ে। চিরিরবন্দর উপজেলা প্রকল্প ও বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো: মনোয়ারুল ইসলাম জানান, সরকারি ভাবে বরাদ্দ এসেছে ৭ হাজার পিছ কম্বল। তা বিতরন করা হয়েছে। তবে শীতের তীব্রতা বাড়লে পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য পর্যাপ্ত শীত বস্ত্র নেই। পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে না পারলে দুস্থ মানুষের দুর্ভোগ বাড়বে। তবে আরো ২৫ থেকে ৩০ হাজার পিছ কম্বল বিতরন করলে কিছুটা লাঘব হবে। চিরিরবন্দর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আবাসিক মেডিকেল অফিসার, ডাঃ মো: মর্তুজা-আল-মামুন জানান, শীত জনিত কারণে আগের চেয়ে রোগির সংখ্যা বেড়েছে। শীত জনিত রোগে আক্রান্ত সবচেয়ে বেশি রোগি শিশু ও বৃদ্ধা। বৃদ্ধারা হাপানিসহ বিভিন্ন রোগের এবং শিশুরা নিমোনিয়া ও ডাইরিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। এনিয়ে আতংক হওয়ার কিছুই নেই।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>